পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন, সুষ্ঠু তদন্ত দাবি

 

পরীক্ষায় জালিয়াতি করে শিক্ষার্থী ভর্তির ঘটনাকে কেন্দ্র করে রংপুরে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকদের দুটি পক্ষ আজ বৃহস্পতিবার পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করেছে। গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের প্রধান নজরুল ইসলাম একটি সংবাদ সম্মেলন করেন। পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে শিক্ষকদের সংগঠন ‘নীল দল’। দুই পক্ষই জালিয়াতি করে ভর্তির ঘটনার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করেছে।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের গ্যালারিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বৃহস্পতিবার সকালে নজরুল ইসলাম লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান। তাঁর সংবাদ সম্মেলনের সময় ওই বিভাগসহ অন্যান্য বিভাগের আরও কয়েকজন শিক্ষক উপস্থিত ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে নজরুল ইসলাম বলেন, ‘গত ১৭ ডিসেম্বর শিক্ষার্থী সাক্ষাৎকারের সময় “বি” ইউনিটে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থী শামস বিন শাহরিয়ার প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জালিয়াতির সঙ্গে শিক্ষক জড়িত রয়েছেন বলে স্বীকারোক্তি দেন। এ ঘটনা জানার পর আমিসহ বোর্ডের অন্য শিক্ষকেরা এর পেছনে কারা জড়িত, তাঁর নাম জানার চেষ্টা করতে থাকি। এ সময় আমার সঙ্গে শিক্ষক আসাদুজ্জামান মণ্ডল, তাবিউর রহমান প্রধান, সাইফুল ইসলাম, বেলাল উদ্দিন, সামান্থা তামরিন উপস্থিত ছিলেন। তখন ওই শিক্ষার্থী শর্ত দেন, সে ম্যাডামদের সামনে কথা বলবেন, পুরুষ শিক্ষকদের সামনে নয়।’

ওই সময় আসাদুজ্জামান মণ্ডল তাঁর মোবাইল ফোন সামান্থা তামরিনের হাতে তুলে দেন জানিয়ে নজরুল ইসলাম বলেন, ‘এ সময় শিক্ষক তাসনিম হুমাইদা ও সামান্থা তামরিন ছেলেটিকে (শিক্ষার্থী) জিজ্ঞাসাবাদ করেন। প্রাপ্ত তথ্য থেকে জানা যায়, একপর্যায়ে আমার নাম জড়িয়ে একটি রেকর্ড শিক্ষক সামান্থা তামরিন ও আসাদুজ্জামানের দেওয়া মোবাইলে ধারণ করা হয়। ধারণ করা রেকর্ডটি তাঁরা (শিক্ষক দুজন) বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ছাড়া কারও কাছে বিনিময় করবেন না বলে প্রতিজ্ঞা করেছিলেন। কিন্তু শিক্ষক সামান্থা তামরিন কক্ষ থেকে বের হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষক আসাদুজ্জামানের কাছে রেকর্ডটি হস্তান্তর করেন। এই দুই শিক্ষক সম্পূর্ণ অসৎ উদ্দেশ্যে ধারণ করা রেকর্ডটি গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে সরবরাহ করেন।’

Related posts

Leave a Reply