অনলাইনে কোরবানির গরু কিনলেন মন্ত্রীরা!

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যে হাটে গিয়ে গরু কেনায় স্বাস্থ্য ঝুঁকি থেকে যায়। সেই কথা মাথায় রেখে অনলাইনে ডিজিটাল হাট থেকে গরু কিনলেন স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি) মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক। এছাড়া মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম এবং ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম পরবর্তীতে কিনবেন বলেও জানান।

শনিবার (১১ জুলাই) ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে কোরবানির পশু বিক্রয়ের অনলাইন প্লাটফর্ম ‘ডিজিটাল হাট’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মন্ত্রীরা যুক্ত থেকে গরু কেনেন।

এ সময় মন্ত্রীরা গরুর চামড়াসহ কিছু অংশ মাংস গরিবদের মাঝে দান করার ঘোষণা দেন। জুনায়েদ আহমেদ পলক ঈদে নিজ গ্রামে থাকবেন বলে অনলাইনে কেনা গরুর পুরো অংশই গরিবদের দান করবেন বলে জানান।

ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে মন্ত্রীরা ডিজিটাল হাটের প্রশংসা করে বলেন,  শুধু করোনাকালে নয় ভবিষ্যতেও গরু কেনাবেচার জন্য এটিই হবে অন্যতম একটি প্ল্যাটফর্ম।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জানানো হয় অনলাইনে গরু কিনলে গরুর মান ঠিক আছে কিনা তার প্রমাণস্বরূপ একটি সার্টিফিকেট দেয়া হবে। এছাড়া এ পদ্ধতিতে গরু কিনতে কোন হাসিল দিতে হবে না। তবে কসাই খরচ, গরু কেনার পর গরুর যাবতীয় খরচ বাবদ এর মূল্যের সাথে ২৩ শতাংশ যুক্ত হবে। এছাড়া ডেলিভারি চার্জ বাবদ নেয়া হবে ১৫০০ টাকা।

করোনা সংক্রমণ মোকাবিলায় ডিএনসিসি, আইসিটি ডিভিশন, ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ ডেইরি ফার্ম এসোসিয়েশন যৌথভাবে এই ডিজিটাল হাট বাস্তবায়ন করবে। ক্রেতারা চাইলে ডিজিটাল হাট থেকে ন্যায্যমূল্যে বিক্রিত কোরবানি পশু ঢাকার ৫টি এলাকা থেকে বিক্রয় পরবর্তী পশুর মাংস প্রক্রিয়াকরণ করে হোম ডেলিভারি নিতে পারবে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক, বিভাগীয় কমিশনার মোস্তাফিজুর রহমান, এফবিসিসিআই প্রেসিডেন্ট শেখ ফজলে ফাহিম প্রমুখ। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।