উখিয়ায় স্বত্বহীন জায়গায় নির্মানাধীন মসজিদ উদ্বোধন কে কেন্দ্র করে দুপক্ষের উত্তেজনা 

স্টাফ রিপোর্টার, উখিয়া:

উখিয়ার রত্না পালংয়ের তেলী পাড়ায় বিনা অনুমতিতে স্বত্বহীন অবস্থায় ব্যক্তি মালিকানাধীন জায়গায় অন্যায়ভাবে মসজিদ নির্মাণ ও উদ্বোধন কে কেন্দ্র করে দু মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। ওই জায়গা সাব কবলা বা উইস না হওয়া পর্যন্ত জোরপূর্বক ভাবে নির্মাধীন মসজিদের নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার জন্য জেলা প্রশাসক সহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট দাবি জানিয়েছেন।

 জেলা প্রশাসনের নিকট লিখিত অভিযোগ উল্লেখ করা হয়েছে, উপজেলার রত্নাপালং গ্রামের মরহুম জাফর আলম চৌধুরী জীবিত অবস্থায় ১৯৮৫ সালে ৫ পুত্র যথাক্রমে মাইনুদ্দিন চৌধুরি আশরাফ উদ্দিন চৌধুরী ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী শরিফ উদ্দিন চৌধুরী ও বোরহান উদ্দিন চৌধুরী কে দানপত্র করেন। যার রেজিঃ কবলা নম্বর হচ্ছে ৫০১৫। পরবর্তী সৃজিত বিএস খতিয়ান নম্বর হচ্ছে ৪৯৬৯। বি এস দাগ নম্বর ৩০৬৮, ৩০৬৭। জমির পরিমাণ শুন্য ৮২৪০শতক।

 অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয় জীবন-জীবিকার তাগিদে জমির মালিক দেশ এবং দেশের বাইরে অবস্থানের সুযোগে সৎভাই জিয়াউদ্দিন চৌধুরী সুকৌশলে উক্ত জায়গায় উপর আলহাজ্ব হাকিম আলীর নামে বহুতল ভবন বিশিষ্ট মসজিদ নির্মাণের কাজ শুরু করে। বিষয়টি মৌখিকভাবে জানানোর পর তিনি ধীরগতি অবলম্বন ও শঠামির আশ্রয় নেয়।

 ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী অভিযোগ করে বলেন করোনা ভাইরাস জনিত কারণে লক ডাউন ও রেড জোন ঘোষনা অবস্থায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়লে এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে জিয়াউদ্দিন চৌধুরী বাহুবল প্রদর্শন করে আমার জায়গার উপর মসজিদের নির্মাণ কাজ চালিয়ে যান। শ্রমিক দিয়ে তড়িঘড়ি করে গাইডওয়াল নির্মাণ কালে মাটি চাপা পড়ে ঘটনাস্থলে একজন নির্মাণ শ্রমিকের করুণ মৃত্যু হয়। আহত হয় আরো পাঁচজন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে উদ্ধার কার্যক্রম পরিচালনা করেন। যার খবর ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ায় গুরুত্বসহকারে প্রকাশিত হয়েছে।

 জায়গার অপরাপর মালিকগণ জানান, জায়গার বিষয়টি সমাধান বা নিষ্পত্তি করে মসজিদের নির্মাণ কাজ করা উচিত ছিল। কিন্তু তিনি তা করিনি।

পরিবারের পক্ষে অভিযোগ করে বলা হয় জোরপূর্বক জমি দখলের অভিযোগে মা দিলারা বেগম বাদী হয়ে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জিয়া উদ্দিন চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নম্বর ১৪১/২০২০ এদিকে জায়গার মালিক দের সাথে সমাধান বা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত স্বত্বহীন জায়গায় অন্যায় ভাবে মসজিদ নির্মাণ উদ্বোধন বন্ধ করার জন্য দাবি জানানো হয়েছে ।