উখিয়া কুতুপালংয়ে সন্ত্রাসী হামলা, দোকান লোট, মহিলাসহ আহত ৩

এম. আবুল কালাম আজাদ, উখিয়া:

উখিয়ার কুতুপালং বাজারে এক ব্যবসায়ীর দীর্ঘদিনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান জবর দখলের উদ্দেশ্যে প্রতিপক্ষরা সন্ত্রাসী কায়দায় হামলা, ভাংচুর ও লোটপাট চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

প্রাপ্ত অভিযোগে জানা গেছে, গত ২ আগস্ট বিকাল ৩টার দিকে কুতুপালং বাজারে দীর্ঘদিনের পুরনো ব্যবসায়ী স্থানীয় কবির আহম্মদের পুত্র শাহ আলম ও জাহাঙ্গীর আলমের মুরগীর দোকান জবর দখলের উদ্দেশ্যে প্রতিপক্ষরা একই এলাকার নুর আহম্মদের পুত্র আব্দুল মান্নান ও জাফর আলমের পুত্র জামাল উদ্দিনের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী অতর্কিতভাবে হামলা ও ভাংচুর চালিয়ে দোকানের ক্যাশ বক্সে রক্ষিত নগদ ৭লাখ ৮০ হাজার টাকা লোটপাট করে দোকানের ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে।

এসময় বাধা দিতে গেলে সন্ত্রাসীদের হামলায় কবির আহম্মদের মেয়ে ইয়াছমিন আক্তার (২২), কবির আহম্মদ (৭৫) ও জাহাঙ্গীর আলম (২০) গুরতর আহত হয়। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করে।

সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌছার আগেই সন্ত্রাসীরা বীর দর্পে পালিয়ে যায় বলে প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান।

এদিকে ইয়াছমিন আক্তার বাদী হয়ে উখিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বিগত ১৯৯০ ইংরেজি সালের ১৩ জানুয়ারী তারিখে উখিয়া সাব রেজিস্ট্রি অফিসে রেজি: দলিল মুলে শাহ আলম ও জাহাঙ্গীর আলমদ্বয়ের ক্রয়কিত দোকান ঘরটি উখিয়া দারোগা বাজারের মৃত অনিল বিশ্বাস প্রকাশ (ননাইয়া) ভাড়ামূলে ব্যবসা পরিচালনা করে আচ্ছিল।

এরই মধ্যে অনিল বিশ্বাসের মৃত্যুর আগে একই এলাকার উলামিয়ার পুত্র কবির আহম্মদ বিগত ২০১৪ সালের ১৬ জুন ননজুডিসিয়াল ষ্ট্যাম্পে দোকানের প্রকৃত মালিক রশিদ আহম্মদ প্রকাশ কালা রশিদের উপস্তিতে দখল ক্রয় করেন।

সে থেকে কবির আহম্মদের পুত্র জাহাঙ্গীর আলম, শাহ আলম ও ইয়াছমিন আক্তার ব্যবসা পরিচালনা করে আচ্ছিল বলে জানান। সে থেকে প্রতিপক্ষরা বহুবার দোকান ঘরটি জবর দখলের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিল বলে থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে।

এনিয়ে কুতুপালং এলাকায় দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

বিডি/কক্স