এবারও বছরের প্রথম দিনেই শিশুরা নতুন বই পাবে

বই উৎসব

বিডিদর্পণ ডেস্ক:

বিগত বছরগুলোর মতো এবারও বছরের প্রথম দিনে শিশুদের হাতে নতুন পাঠ্যপুস্তক যথাসময়ে বিনামূল্যে বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। বুধবার (২৬ আগস্ট) অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি ও সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা পরবর্তী ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

তিনি বলেন, ২০২১ শিক্ষাবর্ষের মাধ্যমিক (বাংলা ও ইংরেজি ভার্সন), ইবতেদায়ি ও দাখিল স্তরের বিনামূল্যের পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণ, বাঁধাই সরবরাহের দরপ্রস্তাব সভায় অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ জন্য ৬৮ কোটি ১ লাখ ৫ হাজার ৮৫৩ টাকার একটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে।

এ প্রকল্পের আওতায় বিনামূল্যে বিতরণের জন্য ২০২১ শিক্ষাবর্ষের মাধ্যমিক (বাংলা ও ইংরেজি ভার্সন), ইবতেদায়ি ও দাখিল স্তরের ৬ কোটি ৫৬ লাখ ৫৬ হাজার ৭৬৭ টি বই মুদ্রণ, বাঁধাই ও সরবরাহের জন্য ই-জিপি পদ্ধতিতে দরপত্র আহবান করলে ৭৫টি লটে ৮২টি প্রতিষ্ঠানের ৮২৭টি দরপত্র জমা পড়ে এবং ৮২৪টি দরপত্র রেসপনসিভ হয়। দরপত্র মূল্যায়নের সকল প্রক্রিয়া শেষে টিইসি কর্তৃক সিসিজিপি’র অনুমোদনের জন্য নিম্নোক্ত দুটি প্রস্তাব করা হয়েছে।

সভায় ২০২১ শিক্ষাবর্ষের মাধ্যমিক (বাংলা ও ইংরেজি ভার্সন), ইবতেদায়ি, দাখিল, এসএসসি ও দাখিল ভোকেশনাল এবং কারিগরি (ট্রেড বই) স্তরের বিনামূল্যের পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণ, বাঁধাই ও সরবরাহের জন্য আহ্বানকৃত ২১০টি লটে দরপ্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। এ জন্য খরচ হবে ২০৫ কোটি ৮৪ লাখ ৮৩ হাজার ৪১৬ টাকা।

বই উৎসব

প্রস্তাবনা:

বছরের প্রথম দিনে শিশুদের হাতে নতুন পাঠ্যপুস্তক যথাসময়ে বিনামূল্যে বিতরণের জন্য ২০২১ শিক্ষাবর্ষের মাধ্যমিক (বাংলা ও ইংরেজি ভার্সন), ইবতেদায়ি, দাখিল, এসএসসি ও দাখিল ভোকেশনাল এবং কারিগরি (ট্রেড বই) স্তরের ১২,২০,৭৪,৩৮০ টি বই মুদ্রণ, বাঁধাই ও সরবরাহের জন্য ই-জিপি পদ্ধতিতে দরপত্র আহ্বান করলে ২১০টি লটে ২১৩৫টি দরপত্র জমা পড়ে এবং ২০৪৭টি দরপত্র রেসপনসিভ হয়। দরপত্র মূল্যায়নের সকল প্রক্রিয়া শেষে টিইসি কর্তৃক সিসিজিপি’র অনুমোদনের জন্য নিম্নোক্ত দুটি প্রস্তাব করা হয়েছে:

সভায় ২০২১ শিক্ষাবর্ষের মাধ্যমিক (বাংলা ভার্সন), স্তরের বিনামূল্যে বিতরণযোগ্য পাঠ্যপুস্তক মুদ্রণের নিমিত্ত ১২ হাজার মে.টন মুদ্রণ কাগজ এবং ১ হাজার ৩০০ মে. টন আর্ট কার্ড ক্রয়ের দরপ্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ জন্য খরচ হবে ৯০ কোটি ৩ লাখ ৪৮ হাজার ৭৫৮ টাকা।

সভায় পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের মূল সেতু ও নদী শাসন কাজ তদারকির জন্য কনস্ট্রাকশন সুপারভিশন কনসালটেন্ট নিয়োগের চুক্তিমূল্য অনুমোদন হয়েছে। প্রকল্পের মূল্য ধরা হয়েছে ৩৪৮ কোটি ১ লাখ ৩২ হাজার ৫৫১ টাকা।

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

বিডি/শি