করোনাভাইরাসের ধাক্কা সামলে চাঙ্গা হচ্ছে চীনের অর্থনীতি

 

করোনাভাইরাসের ধাক্কা সামলিয়ে আবার ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে চীনের অর্থনীতি। এবছর দ্বিতীয় প্রান্তিকে চীন ৩ দশমিক ২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।

বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতির এই দেশটিতে চলতি বছরের প্রথম তিনমাসে লকডাউনের কারণে অর্থনীতি অনেকটাই নিম্নমুখী হয়ে পড়েছিল।

তবে বুধবার প্রকাশিত পরিসংখ্যানে এপ্রিল থেকে জুন মাসে চীনের জিডিপি বাড়তে দেখা গেছে।

বিবিসি জানায়, বিশেষজ্ঞরা যা ধারণা করেছিলেন তার চেয়েও চীনের প্রবৃদ্ধি বেশি হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে দেশটির অর্থনীতি একলাফে অনেক নিচে নেমে যাওয়া থেকে আবার খুব দ্রুতই চাঙ্গা হয়ে উঠার ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে।

করোনাভাইরাসের কারণে বছরের প্রথম তিনমাসে চীনের প্রবৃদ্ধি রেকর্ড ৬ দশমিক ৮ শতাংশ কমে গিয়েছিল।

ভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় ওই সময় ব্যাবসা-বাণিজ্য, কলকারখানা সবই বন্ধ করে দিতে হয়েছিল চীনকে। সংক্রমণ ঠেকাতে আরোপ করতে হয়েছিল কড়াকড়ি।

এরপর থেকে অর্থনীতি সচল করতে চীন সরকার একাধিক পদক্ষেপ নিয়ে আসছে।লকডাউন থেকে বেরিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে দেশটি প্রত্যাশ্যার চেয়েও ভালভাবে অর্থনীতি সামলে উঠছে।

চীন সরকারের সব প্রণোদানা পদক্ষেপই কাজে লেগেছে বলে প্রতীয়মাণ হচ্ছে। কারখানাগুলোতে পূর্ণদ্যেমে কাজ হচ্ছে, শিল্প উৎপাদনে অগ্রগতির ক্ষেত্রে প্রবৃদ্ধি স্পষ্ট হয়ে উঠেছে।

যদিও একটি ক্ষেত্র এখনও সেভাবে চাঙ্গা হতে পারেনি। আর তা হচ্ছে খুচরা বাজার। এক্ষেত্রে অগ্রগতি তুলনামূলক কম হয়েছে। ভোক্তার ব্যয়ও এখনও অনেক কম। তারপরও ভ্রমণসহ আরও কয়েকটি খাতে অর্থনৈতিক ক্ষতি অনেকটাই পুষিয়ে এনেছে চীন।

বৃহস্পতিবার চীনের জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যুরোর দেওয়া তথ্যমতে, চীনে জুনে কর্মসংস্থান বেড়েছে। শহুরে এলাকায় বেকারত্বের হার আগের মাসের তুলনায় কমে দাঁড়িয়েছে ৭.৫ শতাংশে। গত মে মাসের তুলনায় এ হার ০.২ শতাংশ পয়েন্ট কম।