টেকনাফে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণ, শিক্ষক আটক

টেকনাফ প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের টেকনাফে চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। এ ঘটনায় অভিযুক্ত মাদরাসা শিক্ষক মৌলানা নুরুল হক (২০) কে আটক করেছে পুলিশ।

গত বৃহস্পতিবার বিকালে টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের উত্তর শীলখালী আলহেরা ইবতেদায়ি নুরানি মাদরাসায় শিক্ষকের কক্ষে ধর্ষণের এই ঘটনা ঘটে। ধর্ষণের শিকার একই মাদরাসার ছাত্রী শিশুটিকে মুমূর্ষু অবস্থায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শিশুটির অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে।

ধর্ষণের শিকার শিশুটির চাচা জানান, বিকেল ৩টার দিকে মাদরাসার পাশের জমিতে ছাগল আনতে যায় শিশুটি। এ সময় শিক্ষক নুরুল হক তাকে মাদরাসায় ডেকে নিয়ে যায়।

এক পর্যায়ে তার কক্ষে নিয়ে মুখ বেধে ধর্ষণ করে। পরে রক্তাক্ত অবস্থায় শিশুটি বাড়িতে এসে মা-বাবার কাছে এ ঘটনা জানায়। এক পর্যায়ে শিশুটি রক্তক্ষরণে অজ্ঞান হয়ে গেলে মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। শিশুটি সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ঘটনা জানাজানি হলে অভিযুক্ত মাদরাসা শিক্ষক পালিয়ে যায়। পরে জনতার সহায়তায় বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে পুলিশ টেকনাফ সদর ইউনিয়নের মাঠ পাড়া নামক পাহাড়ি এলাকা থেকে তাকে আটক করে। অভিযুক্ত মাদরাসা শিক্ষক রোহিঙ্গা বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, অভিযুক্ত শিক্ষককে পুলিশ আটক করেছে। ভিকটিমের পক্ষ থেকে মামলা প্রক্রিয়া চলছে।

বিডি/কক্স