নতুন মাদক ফেনইথাইলামিন, ধরা পড়লো র‌্যাবের হাতে

বিডিদর্পণ ডেস্ক:

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের তালিকা অনুযায়ী ক শ্রেণির মাদক ফেনইথাইলামিন। এতদিন ইয়াবা, হিরোইন, কোকেইনসহ অন্যান্য মাদক ধরা পড়লেও এবার প্রথমবারের মতো ধরা পড়েছে নতুন মাদক ফেনইথাইলামিন।

মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) সকালে নগরের খুলশী থানাধীন ফয়েজ লেক এলাকায় অভিযান চালিয়ে ফেনইথাইলামিনসহ মো. ফিরোজ খান নামে একজনকে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

ফিরোজ খানের কাছ থেকে ৭৫০ গ্রাম ফেনইথাইলামিন উদ্ধার করা হয়। পরে তার দেওয়া তথ্যে পটিয়া এলাকায় তার বাড়ি থেকে আরও ২৫ গ্রাম ফেনইথাইলামিন উদ্ধার করে র‌্যাব সদস্যরা।

আটক মো. ফিরোজ খান পটিয়া উপজেলার পূর্ব আশিয়া এলাকার হোসেন খানের ছেলে।

র‌্যাব-৭ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. মাহমুদুল হাসান মামুন বাংলানিউজকে বলেন, খুলশী থানাধীন ফয়েজ লেক এলাকায় অভিযান চালিয়ে ফেনইথাইলামিনসহ মো. ফিরোজ খান নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। তার কাছ থেকে মোট ৭৭৫ গ্রাম ফেনইথাইলামিন উদ্ধার করা হয়েছে।

র‌্যাব-৭ এর সহকারী পুলিশ সুপার মো. মাশকুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, ফয়েজ লেক এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৭৫০ গ্রাম ফেনইথাইলামিনসহ ফিরোজ খানকে আটক করা হয়। পরে তার দেওয়া তথ্যে পটিয়া এলাকায় তার বাড়ি থেকে আরও ২৫ গ্রাম ফেনইথাইলামিন উদ্ধার করা হয়। এসব মাদকের বাজারমূল্য আনুমানিক ১২ কোটি টাকা। ফিরোজ খান এসব মাদক আজিজ নামে একজনের কাছ থেকে সংগ্রহ করেছেন বলে জানতে পেরেছি।

র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. মশিউর রহমান জুয়েল বাংলানিউজকে বলেন, আমাদের কাছে মাদক হস্তান্তরের তথ্য ছিল। তথ্য অনুযায়ী অভিযান চালিয়ে ফেনইথাইলামিন আটক করা হয়। জানা মতে ফেনইথাইলামিন এর আগে কখনও আটক হয়নি। ফেনইথাইলামিন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের তালিকা অনুযায়ী ক শ্রেণির মাদক। সাধারণত বাংলাদেশে এ ধরনের মাদক তৈরি হয় না।

লে. কর্নেল মো. মশিউর রহমান জুয়েল বলেন, আটক ফেনইথাইলামিনগুলো কোত্থেকে এসেছে বা কার কাছে যাচ্ছিল তা বের করার চেষ্টা করছি। এর সঙ্গে কারা কারা জড়িত তাদের খুঁজে বের করার চেষ্টা করছি।

সূত্র: বাংলানিউজ

বিডি/কক্স