পল্লবী থানায় বিস্ফোরণের ঘটনায় দুই মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক:

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) পল্লবী থানার ভেতরে ‘ওজন মাপার যন্ত্রের’ বিস্ফোরণের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে দুটি মামলা দায়ের করেছে। আজ বৃহস্পতিবার মামলা দুটি দায়ের করা হয়। আজ বৃহস্পতিবার পল্লবী থানার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) ফারুকুজ্জামান মল্লিক গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানান। তা ছাড়াও তদন্তে নানা তথ্য বেরিয়ে এসেছে বলে তিনি দাবী করেছেন।

ফারুকুজ্জামান মল্লিক বলেন, ‘এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে দুটি মামলা দায়ের করেছে। একটি অস্ত্র আইনে, আরেকটি বিস্ফোরক দ্রব নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।’

ফারুকুজ্জামান মল্লিক বলেন, ‘থানায় বিস্ফোরণের আগে আমরা তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছিলাম। গ্রেপ্তার তিনজনকে ওই দুটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।’

এর আগে গতকাল বুধবার ভোরের পর পল্লবী থানা ভবনে ওজন মাপার যন্ত্র বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। তবে ঘটনাটি ঠিক কখন ঘটেছে, তা নিয়ে তিন রকম বক্তব্য পাওয়া গেছে পুলিশের পক্ষ থেকে। সংশ্লিষ্ট তিন পুলিশ কর্মকর্তা এ তিন ধরনের তথ্য জানিয়েছিলেন। এ বিস্ফোরণের ঘটনায় চার পুলিশসহ পাঁচজন আহত হয়।

ঘটনার পর পল্লবী থানা ভবন পরিদর্শন শেষে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার কৃষ্ণপদ রায় বলেছিলেন, ‘এখন পর্যন্ত প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, যে তিনজনকে আমরা গ্রেপ্তার করেছি, তারা কোনো জঙ্গি গ্রুপের সদস্য নয়। তারা কোনো না কোনো ক্রিমিনাল গ্রুপের সদস্য। ওজন মেশিনসদৃশ বস্তু যা ছিল, সেটার ভেতরেই এই এক্সপ্লোসিভগুলো ছিল। ’

এই ঘটনার পর গতকাল বুধবার রাতে থানায় হামলার ঘটনার দায় স্বীকার করেছে কথিত জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএসআইএস বা আইএস)। অনলাইনে শ্বেতাঙ্গ শ্রেষ্ঠত্ববাদী ও জিহাদি তৎপরতা পর্যবেক্ষণকারী যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক সংস্থা সাইট ইন্টেলিজেন্স এ খবর জানিয়েছে।

সাইট ইন্টেলিজেন্সের গবেষক ও অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা রিটা কাৎজ এক টুইট বার্তায় বলেছেন, ‘‘বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার একটি থানায় (যদিও টুইটে বলা হয় ‘পুলিশের একটি দপ্তর’) হামলা করার দাবি করেছে ইসলামিক স্টেট (আইএসআইএস)। বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার একটি থানায় (যদিও টুইটে বলা হয় ‘পুলিশের একটি দপ্তর’) হামলা করার দাবি করেছে ইসলামিক স্টেট (আইএসআইএস)।’

এই বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইমের (সিটিটিসি) ডেপুটি কমিশনার সাইফুল ইসলাম এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘এ ঘটনায় আইএস মিথ্যা দায় স্বীকার করেছে। গণমাধ্যমের প্রচারণা পেতেই আইএস এ কাজটি করছে বলে আমার ধারণা।’

বিডি/ঢা