বাংলাদেশী যুবক ইউছুপকে ছেড়ে দিয়েছে মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনী

মো: ইউছুপ। ফাইল ছবি

বান্দরবান প্রতিনিধি:  

মিয়ানমার নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত মিয়ানমার বাহিনী কর্তৃক ধরে নিয়ে যাওয়া রাখাল মোঃ ইউছুপ বিজিবি’র চাপে অবশেষে ছাড়া পান সীমান্তের ৪৭ নম্বর ফুলতলী পয়েন্ট দিয়ে।

মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৫ টা ৫০ মিনিটে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। স্থানীয়দের দাবী ১১ বিজিবির বিচক্ষণতায় অতি কম সময়ে কোন দূর্ঘটনা ছাড়াই মুক্তি পাওয়া গেছে। এতে পরিবারের মাঝে ফিরে আসে স্বস্তি।

এ বিষয়ে ১১ বিজিবি অধিনায়ক ও জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল শাহ আবদুল আজীজ আহমেদ বলেন, মিয়ানমার সন্ত্রাসীরা দু’ দেশের সম্পর্ক নষ্ট করতে সব সময় তৎপর।

তারা অনেক সময় সে দেশের সীমান্ত রক্ষী সেজে অপহরণ সহ নানা অপরাধ করে থাকে। ইয়াবা ব্যবসাও করে । যা বাংলাদেশী সীমান্তরক্ষী বিজিবি ওয়াকিবহাল।

তিনি আরো বলেন,ধৃত মোঃ ইউছুপ (৩৯) কে মিয়ানমার বাহিনী ছেড়ে দেন মঙ্গলবার ৫ টা ৫০ মিনিটে। তিনি সুস্থ আছেন।

উল্লেখ্য,সোমবার উপজেলা সদরের দূর্গম বাংলাদেশ-মিয়ানমার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার সদর ইউনিয়নের ফুলতলী সীমান্তের ৪৭ নং পিলারের কাছ থেকে গরু চড়ানোর সময় বাংলাদেশী এ রাখালকে ধরে নিয়ে গেছিল মিয়ানমারের অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা। ধরে নিয়ে গিয়ে ৫ ঘন্টার মাথায় তারা মোঃ ইউছুপের পরিবারের কাছ থেকে ৫৯ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করছিলো।

ইউছুপের স্ত্রী হাসিনা বেগম এ প্রতিবেদককে বলেন, মিয়ানমারের মগ সন্ত্রাসীরা আমাদের কাছ থেকে দাবিকৃত এ ৫০ লাখ টাকা ২৪ ঘন্টার মধ্যে আদায় না করলে হত্যার হুমকিও দিয়েছিলো।

যা পরে ১১ বিজিবি অধিনায়কের বিচক্ষণতায় ও চেষ্টায় শেষ পযর্ন্ত তার স্বামী মিয়ানমারের সন্ত্রাসী বাহিনীর হাত থেকে মুক্তি লাভ করে বাংলাদেশে নিরাপদে ফিরে আসেন। এ জন্য তার পরিবার ও এলাকাবাসী বিজিবি এবং সাংবাদিকদের কাছে কৃতজ্ঞ।

বিডি/সী