সিনহা হত্যায় জেলে প্রেরিত আসামী নুরুল আমিনের মায়ের মামলা দায়ের

টেকনাফ প্রতিনিধি:

মেজর (অবঃ) সিনহা হত্যা মামলায় সন্দেহজনকভাবে ধৃত ৩ আসামীর মধ্যে নুরুল আমিনের মাতা খালেদা বেগম বাদী হয়ে টেকনাফ মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

খালেদা বেগম তার পুত্র নুরুল আমিনকে সোমবার দিবাগত রাতে অপরিচিত কিছু লোক তার বাড়ি থেকে নিয়ে যায় মর্মে উল্লেখ করে মঙ্গলবার ১১আগস্ট ভোরে টেকনাফ মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করেন। যার টেকনাফ থানা মামলা নম্বর ১৯/২০২০ ইংরেজি।

টেকনাফ মডেল থানার নবাগত ওসি মো. আবু ফয়সাল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। মেজর (অবঃ) সিনহা মোঃ রাশেদ হত্যায় তাঁর বড়বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে দায়েরকৃত টেকনাফ থানার ৯/২০২০ নম্বর মামলায় কথিত নিখোঁজ টেকনাফের বাহারছরা ইউনিয়নের নাজিম উদ্দিনের পুত্র নুরুল আমিনকে সন্দেহজনকভাবে আটক করে আদালতে সোপর্দ করার বিষয়টি বুধবার ১১আগস্ট বিকেলে অবহিত হন বলে জানান-টেকনাফ মডেল থানার নবাগত ওসি।

কোর্ট ইন্সপেক্টর প্রদীপ কুমার দাশ পিপিএম জানান-মঙ্গলবার বিকেলে নুরুল আমিন নিখোঁজ হওয়া সংক্রান্ত তার মায়ের দায়ের করা টেকনাফ থানার ১৯/২০২০ নম্বর মামলাটি টেকনাফ মডেল থানা থেকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ভোর রাতে টেকনাফের বাহারছরার মারশবনিয়া এলাকা থেকে নুরুল আমিন, নিজাম উদ্দিন ও মোহাম্মদ আয়াছকে মেজর (অবঃ) সিনহা হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) তাদের আটক করেন।

পরে একইদিন বিকেলে এ ৩জন আসামীকে কক্সবাজার আদালতে আনা হয়। সরকারি ছুটিকালীন দায়িত্বে থাকা কক্সবাজারের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাং হেলাল উদ্দিন তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

একইসাথে মেজর (অবঃ) সিনহা হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (আইও) এই ৩ জন আসামীর প্রত্যেকের জন্য ১০দিনের করে রিমান্ড আবেদন করেন।

সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাং হেলাল উদ্দিন বুধবার ১২আগস্ট সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত নম্বর-৩ (টেকনাফ) এর আদালতে রিমান্ড আবেদন শুনানির জন্য দিন ধার্য করেছেন।

জেল হাজতে পাঠানো নরুল আমিন সহ এই ৩জন সন্দেহজনক আাসামী ৩১জুলাই রাতে মেজর (অবঃ) সিনহা মোঃ রাশেদ হত্যাকান্ডের পর পুলিশের দায়েরকরা ২টি মামলার এজাহারভুক্ত সাক্ষী হিসাবে নাম আছে।

মেজর (অবঃ) সিনহা মোঃ রাশেদ হত্যায় তাঁর বড়বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে দায়েরকৃত টেকনাফ থানার ৯/২০২০ নম্বর, যার টেকনাফ আদালতের সিআর ৯৮/২০২০ নম্বর মামলায় আসামী হিসাবে নুরুল আমিন সহ ধৃত ৩জনের নাম নেই।

বিডি/কক্স