সিনহা হত্যা মামলায় ওসি প্রদীপ ও লিয়াকতসহ আসামী হলেন ৯জন

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী:

মেজর (অবঃ) সিনহা মোঃ রাশেদ খান হত্যার বিচার চেয়ে টেকনাফের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি হত্য মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় টেকনাফের ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, বাহারছরা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের প্রত্যাহারকৃত পরিদর্শক লিয়াকত আলী সহ ৯ কে আসামি করে বুধবার ৫ আগস্ট এই মামলাটি দায়ের করা হয়। বাদীর দায়েরকৃত ফৌজদারি দরখাস্তটি আদালতে গ্রহনযোগ্যতা শুনানীর পর টেকনাফ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক তামান্না ফারাহ্ ফৌজদারি দরখাস্তটি গ্রহণ করে সরাসরি নিয়মিত মামলা হিসাবে রুজু করার জন্য টেকনাফ মডেল থানার ওসি’কে নির্দেশ দিয়েছেন। একই সাথে মামলাটি তদন্ত করে ৭ কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য র‍্যাব-১৫ কে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। মামলাটির প্রধান কৌশলী সিনিয়র আইনজীবী এডভোকেট মোহাম্মদ মোস্তফা বাদীর পক্ষে আদালতে শুনানী করেন।

মেজর (অবঃ) সিনহা মোঃ রাশেদ খানের বড়বোন ও মোঃ শামসুজ্জামানের সহধর্মিণী শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস (৪২) বাদী হয়ে দায়ের করা মামলায় উল্লেখিত ২ জন ছাড়াও বাহারছরা তদন্ত কেন্দ্রের প্রত্যাহারকৃত আরো ৮ জনকে আসামী করা আসামী করা হয়েছে। অন্যান্য আসামীরা হলেন-এসআই নন্দলাল রক্ষিত, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন, এএসআই লিটন মিয়া, এসআই টুটুল, কনস্টেবল মোঃ মোস্তফা। দন্ডবিধি ৩০২, ২০১ ও ৩৪ ধারায় মামলাটি দায়ের করা হয়।
মামলায় মেজর (অবঃ) সিনহা মোঃ রাশেদ খানের সঙ্গী সাহেদুল ইসলাম সিফাত সহ ১০ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে।