স্থানীয়দের কাছে স্বশস্ত্র রোহিঙ্গাদের চাঁদা দাবী, প্রতিবাদে শ্রমিকদের আন্দোলন

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কক্সবাজারের উখিয়ায় ক্যাম্পে সিএনজি আটকিয়ে চাঁদা দাবী করেছে স্বশস্ত্র রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা ।চাঁদা দাবী করে কুতুপালং ক্যাম্পের রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীরা স্থানীয় এক গ্রামীর একটি বাড়িতে হানা দিয়ে ব্যাপক ভাংচুর ও লুটতরাজ চালিয়ে টিভি,ফ্রিজ,আসবাবপত্র ব্যাপক ভাংচুর করে।এতে লক্ষাঢিক টাকার মালামাল লুটে নিয়েছে।

গত ২৮ সেপ্টেম্বর বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে কুতুপালং রেজিস্ট্রোর্ড ক্যাম্পের স্বশস্ত্র রোহিঙ্গারা প্রকাশ্য দিবালোকে দফায়-দফায় এঘটনা ঘটায়।এঘটনায় টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে কুতুপালংয়ে।

ভুক্তভোগী জাফর আলম ও শ্রমিক নেতারা অভিযোগ করে জানান,গত ১৮ সেপ্টেম্বর দুপুর ২ টার দিকে যাত্রী নিয়ে আবেদিত সিএনজি গাড়ী,যার চেচিস নং- ৬৪২৩৭,ইঞ্জিন নং- ১৯৯৭৮,(করিম এন্টারপ্রাইজ লিখা রয়েছে)১৭ নাম্বার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যায়।মুচড়ার টেক নামক স্থানে রাস্তার পাশে গাড়ীটি রেখে চালক চা’র খেতে একটি দোকানে যায়,এসে দেখে সিএনজি গাড়ীটি নাই।তখন থেকে গাড়ীটির খোঁজ নিতে সম্ভাব্য বিভিন্ন জায়গায় খবরাখবর নিয়ে জাননতে পারেন কুতুপালং রেজিস্ট্রোর্ড ক্যাম্পের ই ব্লকের ,শেড নং-২, এমআরসি নং- ৬১২৫১ এর আশ্রিত রোহিঙ্গা নুরুচ্ছালামের ছেলে মোঃ ইউসুফ, তাঁর ছেলে মোঃ ফয়সাল নিয়ে গিয়ে অজ্ঞাত স্থানে লোকিয়ে রেখেছে।

গাড়ীর মালিক কুতুপালং বাজার এলাকার নাজির হোসেনের ছেলে জাফর আলম তাদের নিকট গাড়ী ফেরত চাহিলে ৪ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে।জাফর আলম কেন টাকা দেব এমন উত্তরে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী মাষ্টার মুন্নার, ইউসুফ ও ফায়সালের নেতৃত্বে ৫০/৬০ জনের সংঘবদ্ধ স্বশস্ত্র সন্ত্রাসী রোহিঙ্গারা জাফর আলমের বাড়িতে হানা দিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে।

লুটপাট চালিয়ে লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি ছাড়াও চেয়ার,টেবিল নিয়ে যায়।সন্ত্রাসীরা কচুবনিয়া শ্রমিক অফিসে এসে চেয়ার টেবিল ভাংচুর করে।প্রকাশ্য দিবালোকে আগ্নেয়াস্ত্র, রড, লাটিসোটা, দা, কিরিচ নিয়ে শ্রমিক নেতা ছৈয়দ হোছন,গাড়ীর মালিক জাফর আলম কে প্রাননাশের হুমকি দিয়ে চলে যাওয়ার সময় ৬ টি সিএনজি ও কচুবনিয়ায় শ্রমিকদের অফিস ভাংচুর করেছে।এতে ৬/৭ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে শ্রমিক নেতারা দাবী করেছে।

ঘটনায় জড়িত স্বশস্ত্র রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার, তাদের হেফাজতে থাকা অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, আটকিয়ে রাখা সিএনজি উদ্ধার,ভাংচুর করা গাড়ী,বাড়ির মালামাল লুটপাটের ক্ষতিপুরণ দাবী করে তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

গত ২৮ সেপ্টেম্বর দুপুরে কচুবনিয়া রাস্তার মাথা শ্রমিক অফিসের সামনে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন উখিয়া সিএনজি, মাহিন্দ্রা,অটোরিকশা, টমটম চালক শ্রমিক সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাসুদ আমিন শাকিল,সহসভাপতি ছৈয়দ হোছন,শ্রমিক নেতা মোঃ হোসেন,কামাল উদ্দিন সহ বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নেতারা।

আটকিয়ে রাখা সিএনজি ও ভাংচুর করা বাড়ীর মালিক জাফর আলম,রোহিঙ্গা কর্তৃক ভাংচুরকৃত সিএনজির মালিক,অফিসের শ্রমিকরা অবিলম্বে ক্ষতিপুরণ দাবী করেন।এ ব্যাপারে উখিয়া উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দাখিলের প্রক্রিয়া চলছে বলে ভুক্তভোগীরা জানিয়েছে।

অন্যথায় কঠোর কর্মসুচী দিতে বাধ্য হবেন বলে বক্তারা হুসিয়ারী উচ্চারণ করেন।শত-শত শ্রমিকদের উপস্থিতে প্রতিবাদ সভাটি বিক্ষোভ মিছিলে রুপ নেয় এতে শ্রমিকরা ফেটে পড়ে।উখিয়ার শাহপরীরদ্ধীপ হাইওয়ে পুলিস ফাঁড়ির এএস আই মতিউর রহমান জানান,খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম আপাততে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আহমদ সঞ্জুর মোরশেদের নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, এ বিষয়ে কোন অভিযোগ পায়নি।

বিডি/উপ্র/কক্স