২৩ জুলাই উদ্বোধন করবেন শেখ হাসিনা: খুরুশকুল আশ্রয়ণ প্রকল্পের উদ্বোধনের প্রস্তুতি সম্পন্ন

খুরুশকুল আশ্রয়ণ প্রকল্প

কক্সবাজার প্রতিনিধি:

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অগ্রাধিকার ভিত্তিক আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় কক্সবাজার সদরের খুরুশকুলে নির্মিত ২০ টি ভবন উপকারভোগীদের মাঝে বিতরণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান আগামী ২৩ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে। উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এদিকে অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে চলছে নানা আয়োজনের প্রস্তুতি। ইতিমধ্যে আশ্রয়ণ প্রকল্পের অনুষ্ঠানস্থলে সাজ-সজ্জাসহ নানা প্রস্তুতিও সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া নির্মিত ভবনগুলোতে পানি ও বিদ্যুতের লাইন সংযোগসহ প্রস্তুত করা হয়েছে সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থাও।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন জানিয়েছেন, আগামী বৃহস্পতিবার ( ২৩ জুলাই ) সকাল সাড়ে ১০ টায় সদর উপজেলার খুরুশক‚লে সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে আশ্রয়ণ প্রকল্পের নির্মিত ভবনগুলোর বসতঘর উপকারভোগীদের মাঝে বিতরণের শুভ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভার্চুয়াল প্লাটফরমের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে সরাসরি অনুষ্ঠানে যোগদান করবেন। এতে গণভবন ও খুরুশকুলের প্রান্ত থেকে নির্ধারিত অতিথিরা অংশগ্রহণ করবেন।

ইতিমধ্যে সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সাজ-সজ্জাসহ নানা কর্মসূচীর প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের কর্মসূচীতে থাকছে, সকাল ১০ টায় অতিথিবৃন্দের অনুষ্ঠানস্থলে আগমন ও আসন গ্রহণ, সকাল সাড়ে ১০ টায় প্রধানমন্ত্রীর ব্যাংকোয়াট হলে আগমন, সকাল সাড়ে ১০ টা থেকে পৌণে ১১ টা পর্যন্ত গণভবন প্রান্ত থেকে প্রকল্পের উপর সংক্ষিপ্ত ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করে সঞ্চালনা করবেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব ড. আহমদ কায়কাউস। এরপর সূচনা বক্তব্য রাখবেন সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ।

সকাল ১০ টা ৫০ মিনিটে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সূচনা বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপরই প্রধানমন্ত্রী নির্মিত ২০ টি ভবন শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করবেন এবং ১৯ জন উপকারভোগীদের মাঝে বসতঘরের চাবি হস্তান্তর করবেন। এসময় খুরুশকুল প্রান্তে ৩ জন উপকারভোগী কর্তৃক আশ্রয়ণ প্রকল্পস্থলে রোপন করা হবে ফলদ, বনজ ও ঔষুধী গাছের চারা রোপন। বেলা ১১ টা ২০ মিনিটে অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে মোনাজাত পরিচালনা করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মাওলানা মিযানুর রহমান। এদিকে খুরুশকুল প্রান্ত থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মতবিনিময় করবেন

কক্সবাজারের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেনের সঞ্চালনায় ৩ জন উপকারভোগী অনুভূতি প্রকাশ, সেনাবাহিনীর রামুর ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল মো. মাইন উল্লাহ চৌধুরীসহ প্রধানমন্ত্রীর সানুগ্রহ অনুযায়ী বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গ কথা বলবেন।

বেলা পৌণে ১২ টায় প্রধানমন্ত্রীর নিকট বিশেষ আশ্রয়ণ প্রকল্পের স্মারক করবেন সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ।

জেলা প্রশাসন সূত্র জানিয়েছে, খুরুশকুলে বিশেষ আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের অধীন ২০ টি ভবন নির্মিত হয়েছে। প্রতিটি ভবনে রয়েছে ৩২ টি করে ইউনিট। নির্মিত এসব ভবনে আশ্রয় পাবে ৬৪০ টি পরিবার।